Deprecated: mysql_connect(): The mysql extension is deprecated and will be removed in the future: use mysqli or PDO instead in /home/sumon09/public_html/include/config.php on line 2
 স্বল্পমূল্যে ডিম থেকে বাচ্চা ফোটানোর ইনকিউবেটর উদ্ভাবন

২৬ জুন ২০১৮


হোম   »   কৃষি তথ্য   »   বিভিন্ন ব্যাবসা বানিজ্য  
স্বল্পমূল্যে ডিম থেকে বাচ্চা ফোটানোর ইনকিউবেটর উদ্ভাবন

সাতক্ষীরায় পোলট্রি শিল্পের দিন দিন প্রসার ঘটছে। এগিয়ে আসছে উদ্যমী তরুণরা। এদেরই একজন অমল বিশ্বাস। পোলট্রি ব্যবসার পাশাপাশি এ শিল্পের অতি প্রয়োজনীয় বাচ্চা উত্পাদনের জন্য স্বল্পমূল্যের একটি ইনকিউবেটর মেশিন তিনি উদ্ভাবন করেছেন। এক বছরের পরিশ্রমে তার তৈরি এ ইনকিউবেটর মেশিন দ্বারা সহজ পদ্ধতিতে ও আর্থিক সাশ্রয়ে ডিম থেকে বাচ্চা ফুটানো সম্ভব হচ্ছে।

সাতক্ষীরা জেলা শহরের পলাশপোল এলাকার অনীল বিশ্বাসের ছেলে অমল বিশ্বাস মূলত একজন পোলট্রি ফার্মের মালিক। তিনি এক বছরের চেষ্টার পর সমপ্রতি একটি ইনকিউবেটর মেশিন আবিষ্কার করেছেন। মেশিনটি তৈরি করতে তার খরচ হয়েছে ৫২ হাজার টাকা। এর মাধ্যমে একসঙ্গে ২৮২৮টি ডিম থেকে বাচ্চা ফোটানো সম্ভব। এ মেশিন দ্বারা যে কোনো ধরনের মুরগির ডিম ফোটাতে সময় লাগে ১৮-২১ দিন, হাসের ডিম হলে সময় লাগে ২৮ দিন, কোয়েল-কবুতরের ডিমের জন্য সময় লাগে ১৬ থেকে ১৭ দিন। বাচ্চা উত্পাদনের হার শতকরা ৮০ থেকে ৮৫ ভাগ। অমল বিশ্বাস জানান, বর্তমানে পোলট্রি ফার্মে বিনিয়োগের তুলনায় লাভ কম। কারণ হিসেবে তিনি জানান, খুব বেশি দামে এখন পোলট্রি খামারে ব্যবহূত সরঞ্জামাদি কিনতে হচ্ছে। তা ছাড়া চড়া দামে বাচ্চা ও খাদ্য কিনতে হচ্ছে। পোলট্রিশিল্পকে প্রতিযোগিতায় টিকিয়ে রাখতে এক বছর নিরলস পরিশ্রম করে তিনি এ মেশিন তৈরি করতে সক্ষম হন। এ মেশিনের মাধ্যমে খামারিরা অপেক্ষাকৃত স্বল্প খরচে পোলট্রি মুরগিসহ দেশীয় মুরগির বাচ্চা উত্পাদন করতে পারবে। এর দ্বারা উত্পাদিত বাচ্চার মৃত্যুর হারও কম বলে তিনি জানান। এই মেশিনের বৈশিষ্ট্য সম্পর্কে তিনি বলেন, এ মেশিনে ছেটার ও হিটার একসঙ্গে রয়েছে। তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণের জন্য কুলিং ফ্যান রয়েছে। মেশিন ব্যবহার করার জন্য দরজা খোলার প্রয়োজন নেই। রয়েছে ডিজিটাল ডিসপ্লে­ হিটার। বিদ্যুত্ না থাকলে জেনারেটর-ব্যবস্থা রয়েছে। মেশিনটির বাজারমূল্য সম্পর্কে তিনি বলেন, বাজারে ৫শ’ ডিমের ক্যাপাসিটি-সম্পন্ন মেশিনের দাম ৫০ হাজার টাকা ও ৩ হাজার ডিমের ক্যাপাসিটি-সম্পন্ন মেশিনের দাম এক লাখ টাকা। আর তার উদ্ভাবিত ২৮২৮টি ডিমের ক্যাপাসিটি-সম্পন্ন মেশিনেরমূল্য ৬০ হাজার টাকা। দেশের সম্ভাবনাময় এ অর্থনৈতিক খাতের প্রসারে অপেক্ষাকৃত স্বল্পমূল্যের এ মেশিনটি উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।
পাতাটি ১৫৮৭৪ প্রদর্শিত হয়েছে।
এ সম্পর্কিত আরও সংবাদ

»  কৃষিভিত্তিক শিল্পে ঋণ বিতরণ ২৪ শতাংশ বেড়েছে

»  মসলা চাষে কৃষকের আগ্রহ কমছে

»  দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে পাটের বাজারে চাঙ্গাভাব বর্ধিত দাম পেল না কৃষক

»  ঝালকাঠিতে গুটি ইউরিয়া প্রযুক্তির ওপর মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত

»  পাটজাত পণ্যে নগদ সহায়তায় নতুন শর্ত